দোহারে শিশু ধর্ষণ চেষ্টা, ২০ হাজার টাকায় রফাদফা – দোহারের সংবাদ
  1. admin@doharersongbad.com : admin :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দোহারে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে: আটক ৭-দোহারের সংবাদ নবাবগঞ্জে শিশু হত্যার ঘটনায় মা ও ছেলে আটক-দোহারের সংবাদ দোহারে বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালীন সময়ে মারপিটের ঘটনায় রাহিম কমিশনার গ্রেপ্তার-দোহারের সংবাদ দোহারে বেকারীতে অভিযান ২ লক্ষ টাকা জরিমানা-দোহারের সংবাদ চোরের ভয়ে মোটরসাইকেলে হ্যান্ডকাপ পুলিশের! দোহারের সংবাদ দোহারে কোঠাবাড়ির চক থেকে বৃদ্ধের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার-দোহারের সংবাদ সারাদেশে বৃষ্টি কবে হতে পারে, জানাল আবহাওয়া অফিস-দোহারের সংবাদ দোহারে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলা-দোহারের সংবাদ নবাবগঞ্জে গরু ডাকাতির ঘটনায় আটক-৬-দোহারের সংবাদ দোহারে মৃতপ্রায় ও রোগাক্রান্ত গরুর মাংস বিক্রির দায়ে ৩ জনের জেল-দোহারের সংবাদ

দোহারে শিশু ধর্ষণ চেষ্টা, ২০ হাজার টাকায় রফাদফা

দোহারের সংবাদ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১২৪ বার পঠিত

ঢাকার দোহার উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের চরবৈতা এলাকায় পাঁচ বছরের এক মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ২০ হাজার টাকায় মিটমাট করেন সালিশীগন।

সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, বেশ কয়েকদিন আগে চরবৈতা এলাকায় নানা বাড়িতে মায়ের সাথে বেড়াতে আসে শিশুটি। বুধবার বিকেলে খেলার ছলে কৌশলে ঘরে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে প্রতিবেশী ইসমাঈল কাজীর ছোট ছেলে ইছান (১৪)। শিশুটি চিৎকার করলে পরিবারের লোকজন এগিয়ে এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা করান।

এদিকে এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হলে বিষয়টি ধামাচাঁপা দিতে রাত আটটার দিকে কুসুমহাটি ইউনিয়নের চর পুরুলিয়া এলাকায় নজরুল শিকদারের বাড়িতে সালিশী বসলে সেখানে ২০ হাজার টাকা দিয়ে ঘটনার মিটমাট করা হয়। সালিশীতে আরও উপস্থিত ছিলেন মিলন শিকদার, মাহমুদপুর ইউনিয়ের সালাম মৃধা, মাসুম খানসহ আরও বেশ কয়েকজন।

এবিষয়ে ভুক্তভোগী শিশুটির বাড়িতে গেলে পরিবারের কেউ কথা বলতে রাজি হননি। এদিকে সাংবাদিকের উপস্থিতি টের পেয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে সটকে পরেন অভিযুক্ত ইছানসহ তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা।

ঘটনার বিষয়ে সালিশীতে থাকা নজরুল শিকদার সাংবাদিকদের বলেন, আমরা মিমাংসার জন্য বসেছিলাম। ছেলেপক্ষ হাতজোর করে ক্ষমা চায় ও তাকে শাসন করা হয়। টাকার বিষয়ে বলেন, আমরা টাকা নিতে চাইনি জোর করে টাকা দিয়েছে তাই কিছু বলতে পারিনি। এবিষয়ে মাহমুদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আইয়ুব আলী বলেন, ঘটনাটি খুবই নেক্কারজনক। গোপনে এটি মিমাংসার কোন বিধান নেই। ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তি হওয়া উচিৎ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা