ভাত না খেয়েই পার করেছেন ১৮টি বছর-দোহারের সংবাদ – দোহারের সংবাদ
  1. admin@doharersongbad.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় সংগীতশিল্পী পাগল হাসান নিহত-দোহারের সংবাদ সাভারে কাপড়ের দোকানে এসি বিস্ফোরণ, দগ্ধ ২-দোহারের সংবাদ ফরিদপুরে বাস ও পিকআপ সংঘর্ষে ১১ জন নিহত-দোহারের সংবাদ দোহারে রাতের আধারে বসতঘরে দুর্বৃত্তদের আগুন,১২ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই-দোহারের সংবাদ শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে আগামীকাল ঈদ-দোহারের সংবাদ নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার-দোহারের সংবাদ ঈদের তারিখ ঘোষণা করলো সৌদি আরব-দোহারের সংবাদ তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মারামারী,আহত ৭-দোহারের সংবাদ দোহারে এসএসসি-৯৫ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী, বন্ধুদের নিয়ে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত-দোহারের সংবাদ গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দোহার ও নবাবগঞ্জে লোডশেডিং-দোহারের সংবাদ

ভাত না খেয়েই পার করেছেন ১৮টি বছর-দোহারের সংবাদ

দোহারের সংবাদ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ১৫৮ বার পঠিত

বাংলাদেশের মানুষের খাদ্যাভ্যাসে প্রধান খাবার হিসেবে বিবেচিত ভাত। কেউ দু’বেলা কেউ হয়তো একবেলা ভাত খান। কিন্তু একেবারেই ভাত খান না এমন মানুষ বাংলাদেশে খুঁজে পাওয়া বিরল। তবে এবার ভাত না খাওয়া অবিশ্বাস্য এক যুবকের দেখা মিলেছে শরীয়তপুরে। যিনি কি না ভাত না খেয়েই পার করেছেন ১৮টি বছর!

ভাত না খাওয়া এ যুবকের নাম কাইয়ুম হোসেন শিমুল। বয়স ১৮। পরিবারের দাবি, জন্মের পর থেকে শতচেষ্টার পরও খাওয়ানো যায়নি ভাত। আর জোর করে ভাত খাওয়ালে সঙ্গে সঙ্গে বমি করে। শুধু মুড়ি আর রুটি খেয়েই কাটিয়ে দিচ্ছেন এ যুবক।খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নড়িয়া উপজেলার মোক্তারেরচর ইউনিয়নের নয়নমাদবর কান্দি এলাকায় ভ্যানচালক শিপন মোড়ল ও শাহিনূর বেগমের চার সন্তানের মধ্যে মেজ কাইয়ুম হোসেন শিমুল। জন্মের পর থেকেই একটু দুরন্ত স্বভাবের ছেলে কাইয়ুম। পড়াশোনায় ভালো না হওয়ায় স্থানীয় ঠাকুরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত এসে থমকে যায় তার পড়াশোনা। এরপর থেকে বাড়িতেই থাকেন কাইয়ুম।পরিবারের সদস্যরা তাকে একাধিকবার চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলেও তারা খুঁজে বের করতে পারেননি এ সমস্যার সমাধান।

ভাত না খাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে কাইয়ুম হোসেন বলেন, ‘ভাতের গন্ধ সহ্য হয় না আমার। ভাত দেখলেই ঘেন্নায় বমি চলে আসে। তবে মাছ-মাংস আর মুড়ি খেতে খুব ভালো লাগে আমার। এছাড়া রুটি, কেক আর বিস্কুট খাই আমি।কাইয়ুমের মা শাহিনুর বেগম বলেন, ‘ছোটবেলা থেকে ওকে ভাত খাওয়াতে পারিনি। আমরা যদি ওর পাশে বসে ভাত খাই তাহলে ও অন্য জায়গায় গিয়া বসে থাকে। জোর কইরা কেউ যদি ওর মুখে ভাত দেয় তাইলে সঙ্গে সঙ্গে বমি কইরা ফালায় দেয়। এজন্য কত ডাক্তার দেখাইছি, কিন্তু কোনো ডাক্তার ওর সমস্যার সমাধান বের করতে পারে নাই। সারাদিন মুড়ি, চানাচুর, রুটি, বিস্কুট খাইয়া থাকে। এজন্য ওর স্বাস্থ্যও ভালো না। যদি ঠিকঠাক ভাত খেতো তাহলে আমার ছেলে আরও ভালো থাকতো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা