দোহারে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ – দোহারের সংবাদ
  1. admin@doharersongbad.com : admin :
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দোহারে রাতের আধারে বসতঘরে দুর্বৃত্তদের আগুন,১২ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই-দোহারের সংবাদ শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে আগামীকাল ঈদ-দোহারের সংবাদ নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার-দোহারের সংবাদ ঈদের তারিখ ঘোষণা করলো সৌদি আরব-দোহারের সংবাদ তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মারামারী,আহত ৭-দোহারের সংবাদ দোহারে এসএসসি-৯৫ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী, বন্ধুদের নিয়ে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত-দোহারের সংবাদ গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দোহার ও নবাবগঞ্জে লোডশেডিং-দোহারের সংবাদ ঢাকাসহ চার বিভাগে হিট অ্যালার্ট জারি-দোহারের সংবাদ সাভারে ৯ ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার-দোহারের সংবাদ চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিএসএফের গুলিতে যুবক নিহত-দোহারের সংবাদ

দোহারে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ

দোহারের সংবাদ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৮২ বার পঠিত

ঢাকার দোহার উপজেলার উত্তর শিমুলিয়া এলাকায় ১৫ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার হাসান (২৫) ও নজরুল ওরফে নজুর (৩০) বিরুদ্ধে।
জানা যায়, গত ৩ সেপ্টেম্বর বিকেলে উত্তর শিমুলিয়া এলাকায় ১৫ বছরের এক কিশোরীকে সেভেনআপের সাথে চেতনা নাশক ঔষধ মিশিয়ে অজ্ঞান করে নবাবগঞ্জ উপজেলার চূড়াইন ইউনিয়নের মুসলেমহাটি গ্রামের একটি বাড়িতে নিয়ে র্ধষণ করে হাসান ও নজু। হাসান উত্তর শিমুলিয়া এলাকার কুদ্দুস মোল্লার ছেলে ও নজরুল ওরফে নজু একই এলাকার মোঃ রবের ছেলে। জানা যায়, গ্রাম সম্পর্কে হাসান ও নজু কিশোরীর চাচা হয়।

এ বিষয়ে মেয়ের মা জানান, হাসান ও নজু গ্রাম সম্পর্কে আমার দেবর হয়। সে হিসেবে দেখা হলে কথা হতো তাদের সাথে এবং আমার মেয়েকে চাচ্চু চাচ্চু বলে আদরও করতো। বুঝতে পারিনি আমাদের এই সরলতার সুযোগ নিয়ে এতোবড় ক্ষতি করবে তারা। এ ঘটনার পর মেয়ের কাছ থেকে জানতে পারলাম যে প্রায় ১০/১২ দিন আগে আমার মেয়েকে বাড়িতে একা পেয়ে সেভেন আপের সাথে কিছু মিশিয়ে খাইয়ে অজ্ঞান করে আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে এবং ভিডিও করে আমার মেয়েকে ব্লাকমেইল করে স্বর্ণের চেইন নিয়ে নেয়। আমার মেয়ে লজ্জায় ও ভয়ে আমাদেও কিছু বলেনি। পুনরায় আবার কয়েকদিন ধরে আবার স্বর্ণ ও টাকা পয়সা দাবী করে আসছিলো ওরা। দিতে না পারলে ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখাচ্ছিলো। তখন আমার মেয়ে বাধ্য হয়ে গতকাল ওর স্বর্ণের দুল ও বাড়ি থেকে কিছু টাকা লুকিয়ে নিয়ে বিকেলে দিতে গেলে ওরা দুজন পুনরায় আবার আমার মেয়েকে অজ্ঞান করে নবাবগঞ্জের এক গ্রামের একটি বাড়িতে নিয়ে আবারও ধর্ষণ করে। পরে আমরা রাত ১১টার দিকে আমাদের মেয়েকে সেখান থেকে উদ্ধার করি। তখন আমার মেয়ের থেকে আমরা সব জানতে পারি। মেয়েটি এখন দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসারত আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা